শিক্ষা বিজ্ঞান

উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বিজ্ঞান – শিখন (প্রথম অধ্যায়) প্রশ্নোত্তর সাজেশন 2022

শিক্ষা বিজ্ঞান প্রথম অধ্যায় Suggestions QNA, শিক্ষা বিজ্ঞান দ্বাদশ শ্রেণি, Higher Secondary Education Suggestion, ২০২২ শিক্ষা বিজ্ঞান Suggestions

শিখন (প্রথম অধ্যায়)

[১] শিখন কাকে বলে?

উত্তর : অনুশীলনের ফলে আচরণের সৃষ্টি বা পরিবর্তনকে শিখন বলে।


[২] শিখনের দুটি বৈশিষ্ট্য উল্লেখ করো।
উত্তর : শিখনের দুটি বৈশিষ্ট্য — (১) শিখন আচরণে পরিবর্তন ঘটায় (২) শিখন অনুশীলনসাপেক্ষ।

[৩] গেটস ও অন্যদের মতে শিখন কী?
উত্তর : গেটস্ ও অন্যদের মতে, শিখন হল অতীত অভিজ্ঞতা ও প্রশিক্ষণের মধ্য দিয়ে আচণধারা পরিবর্তনের প্রকিয়া

[৪] গার্ডেনার মারফি শিখনের সংজ্ঞা কী বলেছেন?


উত্তর : গার্ডেনার মারফির মত অনুযায়ী, পরিবেশের প্রয়ােজন মেটানাের তাগিদে আমাদের মধ্যে যেসব আচরণগত পরিবর্তন ঘটে তাই হল শিখন।

[৫] এইচ. পি. স্মিথ শিখন সম্পর্কে কী বলেছেন ?


উত্তর : এইচ, পি, স্মিথের মত অনুযায়ী, শিখন হল অভিজ্ঞতা ফলশুতি হিসেবে নতুন আচরণ আয়ও কথায়, ‘অথবা পুরোনো আচরণকে শক্তিশালী বা দুর্বল করে তােলার প্রক্রিয়া।

[৬] কিংসলে ও গ্যারির মতে শিখন কী ?

উত্তর : কিংসলে ও গ্যারির মত অনুযায়ী, শিখন হল সেই প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে আচরণ সৃষ্টি হয় এবং চর্চা বা প্রশিক্ষণের দ্বারা পরিবর্তিত হয়।

[৭] ক্রো এবং ক্রো-এর মতে শিখন কী?

উত্তর : ক্রো এবং ক্রো-এর মত অনুযায়ী, শিখন হল অভ্যাস, মনােভাব গঠন ও জ্ঞান অর্জনের প্রক্রিয়া।

[৮] ম্যাকগিয়ক ও ইরােভেন শিখনের যে সংজ্ঞাটি দিয়েছেন, তা উল্লেখ করাে।

উত্তর : ম্যাকগিয়ক ও ইরােভেন-এর মত অনুযায়ী, শিখন হল অভিজ্ঞতা, অনুশীলন এবং কর্মপ্রক্রিয়ার শর্তাবলির মধ্য দিয়ে আচরণগত পরিবর্তনের প্রক্রিয়া।

[৯] ট্রেভার্স শিখনের যে সংজ্ঞা দিয়েছেন তা লেখাে।

উত্তর : ট্রেভার্স-এর মত অনুযায়ী, শিখন হল আচরণ পরিবর্তনে
সহায়ক একটি প্রক্রিয়া।

[১০] “শিখন হল স্থায়ী পরিবর্তন।”—এইরূপ বলার কারণ কী?

উত্তর : শিখনের ফলে আচরণে যে পরিবর্তন ঘটে, সেই পরিবর্তন স্থায়ী। অন্যান্য কারণের, (যেমন—ক্লান্তি, ড্রাগ-সেবন ইত্যাদির) ফলে আচরণের পরিবর্তনের সঙ্গে শিখনের মাধ্যমে আচরণের পরিবর্তনের এখানেই তফাত।

[১১] উডওয়ার্থ শিখনের সংজ্ঞায় কী বলেছেন?

উত্তর : শিখনের সংজ্ঞায় উডওয়ার্থ বলেছেন যে, শিখন হল
সেইসব ক্রিয়া যা নানান ধরনের আচরণ ও অভিজ্ঞতা সঞ্চয়ের মধ্য দিয়ে ব্যক্তির উৎকর্ষ বৃদ্ধিতে সহায়তা করে

READ ALSO  ভাত গল্পের MCQ প্রশ্ন ও উত্তর
[১২] “শিখন হল আচরণের পরিবর্তন।”—উক্তিটি ব্যাখ্যা করাে।

উত্তর : শিখনের মাধ্যমে আচরণের পরিবর্তন ঘটে। প্রয়ােজনমতাে অতীত আচরণকে পরিবর্তন করে নতুন আচরণ আয়ত্ত করা বা আচরণের উন্নতি ঘটানাে শিখনের ফলেই সম্ভব হয়। তাই অনেকে শিখনের সংজ্ঞা দিতে গিয়ে আলােচ্য উক্তিটি করেন।

[১৩] শিখনকে ব্যক্তিনির্ভর ও সমাজনির্ভর প্রক্রিয়া বলে কেন?

উত্তর : শিখনে ব্যক্তির প্রচেষ্টার প্রয়ােজন হয় তাই এটি ব্যক্তিনির্ভর। অন্যদিকে, ব্যক্তি সমাজবদ্ধজীব, তার প্রচেষ্টাও সমাজের মধ্যেই ঘটে এবং সমাজ দ্বারা প্রভাবিত হয়। তাই শিখন সমাজনির্ভরও বটে।

[১৪] “শিখন হল বিকাশ।”—এইরূপ বলার কারণ কী?

উত্তর : জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত মানুষের সমগ্র জীবনে শিখন প্রক্রিয়া চলতে থাকে, যার ফলে মানুষের বিভিন্ন দিকের বিকাশ সম্ভব হয়। তাই বলা হয়, “শিখন হল বিকাশ।

[১৫] শিখনের সঙ্গে বুদ্ধির সম্পর্ক কী?

উত্তর : বুদ্ধি শিখনকে সহজ ও সফল করে তােলে। অর্থাৎ, বুদ্ধির সঙ্গে শিখনের ইতিবাচক সম্পর্ক দেখা যায়।

[১৬] শিখন সম্পর্কে মূল ধারণাগুলির যে-কোনাে দুটি লেখাে।

উত্তর : শিখন সম্পর্কে মূল ধারণাগুলির মধ্যে দুটি হল— (১) শিখন হল আচরণের পরিবর্তন এবং (২) শিখন হল আচরণের জন্য অনুশীলন।

[১৭] সংরক্ষণ বা ধারণ কী?

উত্তর : সংরক্ষণ বা ধারণ হল এমন একটি প্রক্রিয়া, যার মাধ্যমে বিভিন্ন অভিজ্ঞতা দীর্ঘমেয়াদি স্মৃতিতে পরিবর্তিত হয়।

[১৮] বৃদ্ধি কী?

উত্তর : জীবদেহের আকৃতি ও আয়তনের যে স্থায়ী পরিবর্তন হয়, তাকে বৃদ্ধি বলে। বৃদ্ধি হল একপ্রকার পরিমাণগত পরিবর্তন।

[১৯] বিকাশ কী?

উত্তর : বিকাশ হল সামগ্রিক গুণগত পরিবর্তনের ক্রম-উন্নয়নশীল প্রক্রিয়া।

[২০] শিখনের পর্যায়গুলি কী? অথবা, শিখনের বিভিন্ন স্তরগুলি উল্লেখ করাে। অথবা, শিখনের বিভিন্ন স্তরগুলি কী?

উত্তর : শিখন প্রক্রিয়ার বিভিন্ন পর্যায়গুলি হল (১) জ্ঞানার্জন, (২) সংরক্ষণ বা ধারণ, (৩) পুনরুদ্রেক বা মনে করা এবং (৪) প্রত্যভিজ্ঞা বা চেনা।

[২১] শিখনের কার্যকরী বিষয়গুলির যে-কোনাে দুটি লেখাে।

উত্তর : শিখনের কার্যকরী বিষয়গুলি হল— (১) উপযুক্ত পরিবেশ, (২) উপযুক্ত পদ্ধতি।

[২২] শিখনের কয়েকটি শ্রেণিবিভাগের উল্লেখ করাে।

উত্তর : শিখনকে বিভিন্ন শ্রেণিতে ভাগ করা যায়। যেমন— সংবেদনমূলক শিখন, প্রত্যক্ষণমূলক শিখন, ধারণা শিখন, সমস্যা সমাধানমূলক শিখন, জ্ঞানমূলক শিখন, দক্ষতামূলক শিখন ইত্যাদি।

READ ALSO  বনগতা গুহা - অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর
[২৩] স্মৃতি কাকে বলে?


উত্তর : ‘অতীত বিষয়বস্তুকে মনে রাখা এবং প্রয়ােজনমতাে তাকে হুবহু স্মরণ করাই হল স্মৃতি, যা একটি মানসিক ক্রিয়া।

[২৪] দুটি অভিজ্ঞতার মধ্যে কয়প্রকার সংযােগের মধ্য দিয়ে অনুষঙ্গ স্থাপিত হয়?

উত্তর : যদি দুটি অভিজ্ঞতার মধ্যে অবস্থানগত ও সময়গত নৈকট্য, সাদৃশ্য এবং বৈপরীত্য থাকে, তবে তাদের মধ্যে তিন প্রকার সংযােগের মাধ্যমে অনুষঙ্গ স্থাপিত হয়।

[২৫] পরিণমন এবং শিখনের মধ্যে দুটি সাদৃশ্য লেখাে৷

উত্তর : পরিণমন এবং শিখনের মধ্যে যে সাদৃশ্যগুলি লক্ষ করা যায়, সেগুলি হল (১) শিখন ও পরিণমন উভয়ই ব্যক্তিনির্ভর প্রক্রিয়া (২) উভয়ই ব্যক্তিজীবনের বিকাশে সহায়তা করে।

[২৬] পরিণমন কাকে বলে?


উত্তর : পরিণমন হল এমন এক জৈবিক প্রক্রিয়া, যার মাধ্যমে জন্মগত সম্ভাবনাগুলির স্বতঃস্ফূর্ত বিকাশের মধ্য দিয়ে। ব্যক্তির আচরণের গুণগত এবং পরিমাণগত উভয় ধরনেরই পরিবর্তন হয়।

[২৭] মনােবিদ কোলেসনিকের মতে পরিণমন কী?

উত্তর : মনােবিদ কোলেসনিকের মত অনুযায়ী, জন্মগত প্রবণতাগুলি স্বাভাবিকভাবে প্রস্ফুটিত হওয়ার ফলে শিশুর আচরণের গুণগত এবং পরিমাণগত পরিবর্তনের প্রক্রিয়াই হল পরিণমন।

[২৮] সংরক্ষণক্রিয়া বা ধারণক্রিয়া কাকে বলে ?

উত্তর : যে বিশেষ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অর্জিত অভিজ্ঞতা ব্যক্তির মধ্যে সংরক্ষিত হয়, মনােবিজ্ঞানের ভাষায় তাকেই সংরক্ষণক্রিয়া বা ধারণক্রিয়া বলে।

[২৯] ধারণ বা সংরক্ষণের ক্ষেত্রে গুরুত্ব দেওয়া হয় এমন দুটি বিষয় উল্লেখ করাে।

উত্তর : ধারণ বা সংরক্ষণের ক্ষেত্রে যে বিষয়গুলিকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়, সেগুলি হল— (১) যে-কোনাে বিষয়কে ভালােভাবে বুঝে নেওয়া এবং বিষয়টিকে মাঝে মাঝে অনুশীলন করা। (২) বিষয়টি জীবনে যত বেশি অর্থবহ হবে, তাতে বেশি স্মৃতিতে থাকবে।

[৩০] ধারণ বা সংরক্ষণের দুটি শর্ত লেখাে।

উত্তর : ধারণ বা সংরক্ষণের দুটি শর্ত হল — (১) যে-কোনাে বিষয় ভালােভাবে বুঝে নেওয়া এবং বিষয়টিকে মাঝে মাঝে
অনুশীলন করা। (২) অতিশিখন।

[৩১] প্রত্যক্ষ পুনরুদ্রেক কাকে বলে?

উত্তর : যখন কোনাে অভিজ্ঞতাকে মনে করার সময় কেবল তার সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে সম্পর্কযুক্ত অভিজ্ঞতাটির সাহায্য গ্রহণ করা হয়, তখন তাকে প্রত্যক্ষ পুনরুদ্রেক বলা হয়।

[৩২] প্রত্যক্ষ পুনরুদ্রেকের একটি উদাহরণ দাও।

READ ALSO  তেলেনাপােতা আবিষ্কার - প্রেমেন্দ্র মিত্র

উত্তর : যদু ও মধু দুই বন্ধু। যদুর কথা বললে যদি মধুর কথা মনে পড়ে তবে তা হল প্রত্যক্ষ পুনরুদ্রেক।

[৩৩] পুনরুদ্রেকের ক্ষেত্রে বৈসাদৃশ্যের সূত্রটি কী?

উত্তর : বৈসাদৃশ্যও পুনরুদ্রেকের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। দুটি বিষয়ের মধ্যে বৈসাদৃশ্য থাকলে একটি মনে করলে অপরটিও মনে পড়ে যায়। একেই বৈসাদৃশ্যের সূত্র হিসেবে ধরা হয়। যেমন—শদ্ভু মিত্র।

[৩৪] পুনরুদ্রেকের দুটি শর্ত লেখাে।

উত্তর : পুনরুদ্রেকের দুটি শর্ত হল— (১) যদি দুটি ঘটনা একই সময়ে ঘটে, তবে সময়গত নৈকট্যের জন্য সেগুলি আমাদের মধ্যে পুনরুদ্রেক ঘটায়। (২) যদি কয়েকটি ঘটনা পর্যায়ক্রমে ঘটে, তবে পুনরাবৃত্তির জন্য সেগুলিও আমাদের মধ্যে পুনরুদ্রেক ঘটায়।

[৩৫] প্রত্যভিজ্ঞা কাকে বলে?

উত্তর : পূর্বর্জিত অভিজ্ঞতা যখন তার প্রতিরূপের সাহায্যে পুনরুত্থাপিত হয়, তখন তাকে প্রত্যভিজ্ঞ বলে।

[৩৬] এস্কিনারের মতে পরিণমন কী ?

উত্তর : পরিণমন হল এমন একপ্রকার বিকাশ যা পারিপার্শ্বিক অবস্থার পার্থক্য থাকলেও সংঘটিত হয়।

[৩৭] থম্পসনের মতে পরিণমন কী?

উত্তর : থম্পসনের মত অনুযায়ী, যে প্রক্রিয়ার মাধ্যমে শিশু একজন পরিণত মানুষ হয়ে ওঠে এবং যে প্রক্রিয়াটি বাহ্যিক প্রভাব বা উপাদান ছাড়াই শারীরিক পরিবর্তন ঘটায়, তাই হল পরিণমন।

[৩৮] পরিণমনের সর্বাধুনিক সংজ্ঞাটি লেখাে।

উত্তর : পরিণমনের সর্বাধুনিক সংজ্ঞাটি হল—শিখন নিরপেক্ষ, অনুশীলনহীন যে প্রক্রিয়া ব্যক্তির মধ্যে স্বতঃস্ফূর্তভাবে সংঘটিত হয়ে ব্যক্তির অভ্যন্তরীণ বৃদ্ধিতে সহায়ক হয়, সেই প্রক্রিয়াকে পরিণমন বলে।

[৩৯] পরিণমনের একটি বৈশিষ্ট্য উল্লেখ করাে।

উত্তর : পরিণমনের একটি বৈশিষ্ট্য হল— পরিণমন জীবনব্যাপী প্রক্রিয়া নয়। পরিণমন জীবনের একটি বিশেষ পর্যায়ে শুরু হয় এবং একটি বিশেষ পর্যায়ে শেষ হয়।

[৪০] অনুরাগ বা আগ্রহ কাকে বলে?

উত্তর :অনুরাগ বা আগ্রহ হল বাস্তব বা কাল্পনিক কোনাে বস্তু বা অবস্থার প্রতি আনন্দের অনুভূতি যা ব্যক্তিকে কিছু করতে উদ্বুদ্ধ করে।

[৪১] অনুরাগ বা আগ্রহের দুটি বৈশিষ্ট্য লেখাে।

উত্তর : অনুরাগ বা আগ্রহের দুটি বৈশিষ্ট্য হল— (১) অনুরাগ বাআগ্রহ চাহিদানির্ভর, অনুরাগ সৃষ্টির মূল কারণ হল চাহিদা বা অভাববােধ। (২) আগ্রহ একটি মানসিক অবস্থা।

কে বাঁচায় কে বাঁচে প্রশ্ন এবং উত্তর (Question and Answer). HS

মহীশূরের পতনের কারণ (The reason for the fall of Mysore)

Leave a Reply

Back to top button
WP Radio
WP Radio
OFFLINE LIVE